Recents in Beach

ত্রিপুরায় চাকমা সম্প্রদায়কে নিয়ে কে কি ভাবে???


উত্তর-পূর্ব ভারতের ছোট পাহাড়ি রাজ্য ত্রিপুরা। ১৯ দফা অধিবাসীর বসবাস রয়েছে । তাদের মধ্যে অন্যতম দেববর্মা, ত্রিপুরা, রিয়াং, চাকমা, জমাতিয়া, নোয়াতিয়া, হালাম, প্রভৃতি আলাদা আলাদা জাতিগোষ্ঠী।

তার মধ্যে নেতৃত্ব দিচ্ছেন দেববর্মা সম্প্রদায়। সে রাজনৈতিকভাবে হোক কিংবা শিক্ষিতের দিক দিয়ে হোক বা সরকারিভাবে হোক।

যদিও শিক্ষার দিক দিয়ে চাকমা ও অন্যান্য জনগোষ্ঠীরাও নেহাত কম নয়। সে যেভাবেই হোক। তার উদাহরণ স্বরূপ IPS শ্রী ক্ষত্রিয় রিয়াং, IAS শ্রী তরিৎ কান্তি চাকমা সহ আরো অনেকজন ।

সবাই সমানতালে এগিয়ে যাচ্ছে নিজ চেষ্টায়। কিন্তু তার মধ্যে একটি জটিল ও ভয়ঙ্কর বিষয় হল যারা যুগের তালে নিজ ক্ষমতায় এগিয়ে যাচ্ছে তার মধ্যে চাকমা জাতিগোষ্ঠীকে নিয়ে বাকি জনজাতিদের মনে হিংসা এবং অমানবিক চিন্তা ভাবনা।

যদিও বাকি নেতৃত্ব সম্প্রদায় চাকমাদের জাতিগোষ্ঠীকে ত্রিপুরার বাসিন্দা হিসেবে মানতে রাজি নন। অন্যদিকে সবাইকে আপন করে নিতে পার্বত্য চট্টগ্রামে চাকমারা নিজের পরিচয়কে পাশে রেখে নিজেদের জুম্মো হিসেবে পরিচিতি দিয়ে রেখেছে।

আর এদিকে ত্রিপুরায় সেই জনগোষ্ঠী চাকমাদেরকে অন্য চোখে দেখছে। যার প্রমাণ আমরা উপরের ছবিতে দেখতে পায়।

যেখানে(পার্বত্য চট্টগ্রাম) চাকমা জাতিগোষ্ঠী নেতৃত্বে রয়েছে সেখানে সবাইকে(১২ দফা) নিয়ে জুম্মোল্যান্ড দাবি আর এখানে (ত্রিপুরায় ১৯ দফা) শুধু ত্রিপুরীদের তিপ্রাল্যান্ড। এর মধ্যে কতটুকু তফাৎ রয়েছে।

এর কারণ কি ???

একদিকে তিপ্রাল্যান্ড ও এন আর সি অন্যদিকে ১৭ই আগষ্ট কালো দিবস পালনের মাধ্যমে পার্বত্য চট্টগ্রামকে ভারত ভুক্তির দাবি। যেখানে চাকমা, রিয়াং, ত্রিপুরা, দেববর্মা, মারমা(মগ) সহ ১২ দফা অধিবাসীর বসবাস রয়েছে।

কেন এত বৈষম্যমূলক আচরণ তার সদুত্তর সম্ভবত কেউই দিতে পারবে না। অধরায় থেকে যাবে।

(সত্য -  The Truth)

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ